মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

কী সেবা কীভাবে পাবেন

ক্রমিক নং সেবার নাম সেবা প্রদান পদ্ধতি
১ । গবাদি পশুর চিকিৎসা প্রদান

১। কৃষক/খামারী/গবাদিপশুর মালিকগণ অসুস্থ গবাদিপশুকে পশু হাসপাতালে নিয়ে আসেন এবং রেজিষ্ট্রেশন করেন ও চিকিতসার জন্য আবেদন করেন।

২। অতঃপর পশুহাসপারিততালে প্রয়োজনীয় পরীক্ষা নিরীক্ষা করে রোগ নির্নয় করার পর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থাপত্র সহ ঔষধ প্রদান করা হয়ে থাকে।

 

২ । গবাদিপশুর কৃত্রিম প্রজনন

১। গাভীর মালিক গাভী গরম হওয়ার পর গাভীকে কৃত্রিম প্রজনন কেন্দ্রে নিয়ে আসবেন এবং কৃত্রিম প্রজননের জন্য আবেদন জানাবে ।

২ । খামারী/পশুর মালিকগণ গাভী গরম হওয়ার ৮-১০ ঘন্টা পর প্রজনন কেন্দ্রে নিয়ে আসে ।

৩ । কৃত্রিম প্রজনন কেন্দ্রে রেজিস্টারভূক্ত করনের পর উপযুক্ত পরীক্ষা নিরীক্ষা করা হয় । তারপর সরকারী রশিদের মাধ্যমে ফি আদায়ের পর নিয়ম অনুযায়ী কৃত্রিম প্রজনন করানো হয় এবং রশিদ প্রদান করা হয় ।
৩ । গবাদিপশুর টীকাদান

১ । গবাদিপশুর মালিকগণ তাদের গবাদিপশু সমূহ টীকাদান কেন্দ্রে নিয়ে আসবেন এবং টীকা দেয়ার জন্য আবেদন জানাবেন । টীকা প্রদানকারী কর্তৃপক্ষ টীকা প্রদানের জন্য টিকা প্রস্তত করবেন এবং ফি আদায় করবেন । ফি আদায়ের পর টীকা প্রদান করবেন এবং পশুর মালিক পশু বাড়ীতে নিয়ে যাবেন । নিয়মিতভাবে এলাকার চাহিদা অনুযায়ী নিবির টীকাদান কর্মসূচী পরিচালনা করা হয়ে থাকে ।

২ । কমপক্ষে ১৫ দিন অন্তর একটি রোগের টীকা দিতে হয় ।

৩ । হটাত কোনো রোগের প্রাদুর্ভাব দেখা দিলে জরুরী ভিত্তিতে ঐ রোগের টীকা প্রদান করা হয় ।

৪ । নির্দিষ্ট পশুকে নির্দিষ্ট রোগের টীকা প্রদান করা হয় ।
৪ । হাঁস- মুরগীরটিকাদান

১। গবাদি প্রানির মালিক নির্দিষ্ট স্থানে হাঁস –মুরগী জমা করবে এবং টিকা প্রদানের জন্য আবেদন করবে । টিকা গুলানোর পর মুল্য আদায়ের পর টিকা দান করবে । প্রতি সপ্তাহে বৃহস্পতিবার  ১ দিন উপজেলা প্রাণি হাসপাতালে হাস-মুরগী টিকা প্রদান করা হয় ।

২ । ইউনিয়ন পশুপাখি কল্যান কেন্দ্রে প্রয়োজন অনুযায়ী টিকা প্রদান করা হয়ে থাকে ।

৩ । সেবাকর্মীর মাধ্যমে কোন নির্দিষ্ট এলাকায় চাহিদা মোতাবেক টিকা প্রদান করা হয়ে থাকে ।

৪ । সরকারী/বেসরকারী খামারসমূহে রুটিন মাফিক টিকা প্রদান করা হয় ।
৫ । কৃষক/খামারী প্রশিক্ষন

১ । প্রয়োজনীয় বরাদ্দ পাওয়ার পরভি, এফ, এ/ইউ, এল, এ এবং ইউ, পিমেম্বার সমন্বয়ে তালিকা প্রনয়ন করার পর ইউ,পি/পৌরসভা এবং উপজেলা পরিষদ সভায় তালিকা অনুমোদনের পর প্রশিক্ষনের দিন, তারিখ এবং সময় নির্ধারন করা হয় এবং সংশ্লিষ্টদের অবহিত করা হয়

২ । প্রয়োজন অনুযায়ী অতিথি বক্তা নির্বাচন করা হয় ।

৩ । নির্দিষ্ট সময় প্রশিক্ষন দেওয়ার পর প্রশিক্ষন সমাপ্ত করা হয় ।
৬ । ক্ষুদ্র ঋন বিতরণ

১ । প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ প্রদানের পর বরাদ্দ প্রাপ্তি সাপেক্ষে সরকারি নিয়ম মোতাবেক জন প্রতি হারে ঋন প্রদান করা হয় ।

২ । ক্ষুদ্রঋন উপজেলা অফিস থেকে এবং বৃহদাকার ঋন ব্যাংকের মাধ্যমে প্রদান করা হয় । খামারিগণ ঋন পাওয়ার জন্য উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তার বরাবর আবেদন করবে । উপজেলা ঋন্দান কমিটি কর্তৃক বাছাই করার পর ক্ষুদ্রঋন প্রদান করা হয় ।
৭ । দূর্যোগ কালীন সময়ে জরূরী  সেবা প্রদান দূর্যোগ কালীন সময়ে জরূরী  সেবা প্রদানের জন্য অগ্রাধীকার তালিকা তৈরী করা । আক্রান্ত এলাকার চাহিদা মোতাবেক এবং সেবা পণ্য প্রাপ্তি সাপেক্ষে নির্দিষ্ট এলাকায় সেবা প্রদান করা হয়য় । প্রাকৃতিক দূর্যোগকালীন সময়ে স্থানীয় প্রশাসন, জনপ্রতিনিধি ও বেসরকারী সেবামূলক প্রতিষ্ঠানের সহযোগীতায় অধিদপ্তরের জরূরী সেবা প্রদান করা হয় ।
৮ । উন্নত প্রযুক্তি জনসাধারণের মাঝে বিতরণ উন্নত প্রযুক্তি জনসাধারণের মাঝে হস্তান্তরের জন্য কৃষক/খামারীদেরকে নিয়ে সভা/প্রশিক্ষণের আয়োজন করা হয় এর মাধ্যমে প্রযুক্তির/বিবরণীজনসাধারণের মাঝে হস্তান্তর করা হয় ।
৯ । জনসাধারনের অভিযোগ গ্রহন ও নিস্পত্তিকরণ যে সমস্ত সেবা জনগণকে সরাসরি দেওয়া যায় না/ জনগণ পায় না, সে বিষয়ে জনগণের নিকট থেকে অভিযোগ শোনার পর ব্যবস্থা গ্রহন করা হয় ।
১০ । উন্নত জাতের ঘাসের চারা/বীজ বিতরণ নির্দিষ্ট এলাকায় ঘাস চাষের জন্য নির্দিষ্ট এলাকার কৃষক নির্বাচন করা হয়। কৃষিকদের যথানিয়মে প্রশিক্ষন প্রদান করা হয় । প্রশিক্ষণের পর বীজ/চারা বিতরণ করা হয় । বীজ/চারা বিতরণের পর ঘাসের প্লট পরিদর্শন করা হয় ।

 

ছবি


সংযুক্তি


সংযুক্তি (একাধিক)



Share with :

Facebook Twitter